পলিমরফিক ইন্টারফেরেন্স -> 1

‘চোখ খোল মেট্রাউস’প্রায় ধমকের সুরে বলল মেগাপল৫।
‘এরকম আনন্দের সংবাদ শুনে কেউ আতংকে অজ্ঞান হয়ে যায়? কি আশ্চর্য!! আসলে আমাদের ভেতর মানবিক অনুভূতি দিয়ে যাওয়াটা উচিত হয়নি। মানুষগুলো আসলেই অদূরদর্শী ছিল।‘আপসোসের মত শোনালো মেগাপলের যান্ত্রিক কন্ঠ।
মেট্রাউসের তখনো জ্ঞান ফেরেনি। আবেগে তার কপোট্রনের বা দিকের অংশটা ফেইল করেছে। তাই রিস্টোর করে পুনরায় আবেগ লোড করতে একটু সময় লাগছে।
সিস্টেম রিস্টোর করার এই এক ঝামেলা। সুস্থ্য হুওয়ার পরেও আরো কিছুক্ষন মাথা ঝিমঝিম করবে,বমি বমি ভাব চলে আসে। অবশ্য আজ অব্দি কোন এন্ড্রয়েড সত্যিকার অর্থে বমি করেছে বলে শোনা যায়নি। তবে এই ফালতু একটা অনুভূতি কেন তাদের মধ্যে দিয়ে গেল মানুষ ভেবে মনে মনে মানুষকে কতক্ষন গালাগাল দিল মেট্রাউস। আসলে সবদিক থেকে নিজেদের মত তৈরী করতে গিয়ে খানিকটা দূর্বল করে ফেলা হয়েছে তাদেরকে। তারপরেও নিজেদের পেশীশক্তি ব্যাবহার করে মানুষকে পৃথীবী থেকে তাড়ানো গেছে এই বা কম কি? শোনা যায় এন্ড্রমিডা গ্যালাক্সির কোন এক গ্রহে আবাস গড়েছে মানুষ। ভালমত সংগঠিত হতে পারলে আবার পৃথীবীতে এসে জ্বালাতন শুরু করবে ভ…

সফটওয়্যার ডেভেলপার হিসেবে জবের প্রস্তুতি

বাংলাদেশে সফটওয়্যার ডেভেলপার হিসেবে জবের মার্কেট ধরার জন্য ইমেডিয়েটলি কিছু বিষয়ে নজর দেয়া দরকার। 


স্কিল
যাহোক, প্রথমত আপনি সবকিছু একসাথে না করে যেকোন একটায় ভালো স্কিল জোগাড় করার চেষ্টা করুন। আপ্নি যদি জ্যাংগোতে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করে মজা পান তবে সেটাতেই লেগে থাকুন। কিংবা জাভাস্ক্রীপ্ট।
কোটলিনের জব অপরচুনিটি কিছুটা কম বাংলাদেশে। কিন্তু শিখলে ক্ষতি নাই। সাজেশন থাকবে যে কোন একটায় ভালো স্কিলড হতে চেষ্টা করেন, সেই সাথে কিছু ওপেনসোর্স প্রোজেক্টে কন্ট্রিবিউট করেন।
ওপেনসোর্স প্রোজেক্টে কাজ করলে যেটা হবে,
  • আপনি অনেক কিছু শিখতে পারবেন।
  • আপনার প্রোফাইল/সিভি ভারী হবে।
  • আপনার কাজ অন্যকে দেখানোর সুযোগ পাবেন, নেটওয়ার্কিং হবে। গিটহাব প্রোফাইলে আপনার কন্ট্রিবিউশনগুলো কিন্ত আপনার প্রোফাইলে সোনার অক্ষরে লেখা থাকবে সারাজীবন।
প্রোফেশনাল নেটওয়ার্কিং
সফটওয়্যার ডেভেলপাররের বেশীরভাগ জবই নিজেদের অদৃশ্য নেটওয়ার্কের মাধ্যমে হয়। কোন কোম্পানীর রিসোর্স দরকার হলে তাদের এক্সিস্টিং এমপ্লয়িরা নিজের নেটওয়ার্ক থেকে রিসোর্স খুজে নিয়ে নেয়। একারনে দেখবেন বিডিজবসের মত ওয়েবসাইটগুলোতে জবের এপ্লিকেশন করলে বেশীরভাগই খুলেও দেখে না।
এটাকে আমি আসলে খারাপ বলব না। অচেনা কারো প্রোগ্রামিং স্কিল যাচাই করা খুবই টাফ। আর কোম্পানীরা সেফ সাইডে থাকতে চাইবে সেটাই স্বাভাবিক।
তাই নেটওয়ার্কিং এর দিকে নজর দিন। পরিচিত সিনিয়র ভাই/বোন ইন্ডাস্ট্রিতে থাকলে তাদের ফলো করার চেষ্টা করেন। সম্পর্ক ভালো রাখার চেষ্টা করেন। চাইলেই তারা জব দিতে পারবে না, তবে জবের অপরটুনিটি আসলে যেন আপনার কথা তাদের মাথায় আসে, সেভাবে তাদের সাথে মেশার চেষ্টা করেন।
ব্লগ লিখুন
ব্লগ জিনিসটা হচ্ছে আপনার কাজের ফুটপ্রিন্ট। আপনি নতুন যা কিছুই শিখেন কিংবা ইমপ্লিমেন্ট করেন না কেন, লিখে রাখেন। এবং সেই লিঙ্কটা আপনার সিভিতে রাখেন। আপনার ব্লগগুলো দেখলে নিঃসন্দেহে ইন্টারভিউ বোর্ডে অনেকটাই এগিয়ে থাকবেন। আমি আবার বলছি, এটা খুবই গুরুত্বপূর্ন আপনার প্রোফেশনাল লাইফের ক্ষেত্রে। যারা ব্লগ লিখে না তাদের চাইতে নিঃসন্দেহে অনেকাংশে এগিয়ে থাকবেন।
আপনার লেখাগুলো আমাদের এখানেই লিখতে পারেন। সুবিধা হচ্ছে, অনেক মানুষ আপনার পোস্ট দেখবে, কমেন্ট করবে, তাদের কাছে আপনার একটা রেপুটেশন তৈরী হবে। অথবা ব্লগার.কম এ ফ্রি ব্লগ বানিয়ে সেখানে লিখতে পারেন।
লিঙ্কডইন
লিঙ্কডইন 1 এ অ্যাকাউন্ট করে সেখানে আপনার প্রোফাইল তৈরী করেন, কানেকশন বাড়ান। এটা আপনার প্রোফেশনাল পোর্টফোলিও হিসেবে কাজ করবে, সেই সাথে নেটওয়ার্কিং হবে।
লিঙ্কডনে ঈদানিং জব পোস্ট করে আধুনিকমনা কোম্পানীগুলো। কাজেই সেদিক থেকেও সুবিধা পাবেন।
আপাতত এই জিনিসুগুলো ফলো করেন, আশা করছি জবের জন্য খুব বেশী অপেক্ষা করতে হবে না।
বেশ কিছু পয়েন্ট মিস করে ফেলতে পারি। আরো কিছু মাথায় আসলে এই পোস্ট আপডেট করা হবে।

Comments

Popular posts from this blog

Deploy Spring Boot app in digitalocean cloud (or any cloud as long asyou have ssh access)

Upload large files : Spring Boot

User activity logging: Spring